fbpx
Home / Uncategorized / মেয়েদের স্ত’ন সুন্দর ও আকর্ষণীয় করবেন যেভাবে

মেয়েদের স্ত’ন সুন্দর ও আকর্ষণীয় করবেন যেভাবে

না’রীর সৌন্দর্যের একটা গুরত্বপূর্ণ অংশ হল তাদের স্ত’ন। ১২-১৩ বছরে এই লক্ষণ বোঝা যায়। কিছু নিয়ম মেনে চললেই মেয়েরা তাদের স্ত’নকে সুন্দর রাখতে পারে। নিচের নিয়মগুলো মেনে চললে খুব সহজেই স্ত’ন আকর্ষনীয় করা সম্ভব। স্ত’নে তিন ধরনের সমস্যা থাকে- ১/ অপুষ্ট স্ত’ন, ২/ ভীষণ ভারি বা বিশাল মোটা স্ত’ন, ৩/ ঝুলে পড়া স্ত’ন। স্ত’নের সোন্দর্য বৃদ্ধির উপায়- ১/ স্ত’ন বড় বা ছোট তা বুঝে নির্দিষ্ট ব্যায়াম করুণ। ২/ খুব টাইট ও নয়,আবার খুব ঢি’লে ও নয় এমন ব্রা পরুন। ৩/ দিনে ২ বার প্রথমে গরম ও পরে ঠান্ডা এ ভাবে কয়েক বার পানি ঢা’লুন। ৪/ বড় ও মোটা স্ত’ন যাদের তারা চর্বি বা স্নে’হ জতীয় খাবার থেকে দুরে থাকুন। ৫/ স্ত’নের সৌন্দর্য বৃদ্ধির জন্য বেশি করে দো’লনা খানএবং সা’তার কাটুন। ৬/ প্রতিদিন স্না’নের আগে বাথরুমে ৫ মিনিট ব্যা’য়াম করুন যাতে স্ত’নের পেশিতে চা’প পড়ে। ৭/ রাতে ব্রা খু’লে ঘুমান। ৮/ স্ত’নের বোঁটার সৌন্দর্য বাড়াতে একটা খালি বোতলে গরম পানি ভরে রাখুন। এতে বো’তলটা কিছুটা গরম থাকবে। এ অবস্থায় ঐ বোতলের মুখে আপনার স্ত’নের বো’টা ঢুকিয়ে দিন। বোতল ঠান্ডা না হওয়া পর্যন্ত ঢু’কিয়ে রাখুন। স্ত’ন এর বোটা বিকাশে এটি সবচেয়ে ভাল পদ্ধতি। উ’পরোক্ত নিয়ম ছাড়াও স্ত’ন মা’লিশের মাধ্যমে স্ত’ন সুন্দর রাখা সম্ভব– খাঁ’টি দুধের সাথে কয়েক ফোঁটা অলিভ অয়েল দিয়ে স্ত’নে মা’লিশ করুন। মা’লিশ করবেন নিচের থেকে উপরের দিকে। এতে স্ত’নের র’ক্ত স’ঞ্চার স্বাভাবিক হবে ও সু’ডৌল হবে। মা’লিশ করার পর ঠান্ডা পানিতে স্নান করুন। আরো পড়ুন: সত্যি কি হাতের স্পর্শে মেয়েদের স্ত’নের আকার বৃদ্ধি পায়? প্রাচীন কাল থেকেই নারী শরীর নিয়ে জল্পনা কল্পনার শেষ নেই। শরীরের সব অ’ঙ্গই বয়স বাড়ার সাথে সাথে বৃদ্ধি পেতে থাকে। কিন্তু যখন প্রশ্ন ওঠে মেয়েদের শরীর অর্থাৎ মেয়েদের স্ত’ন নিয়ে, তখন সবার কথা বন্ধ হয়ে যায়। কারন মেয়েদের স্ত’নের আকৃতি কখন বৃদ্ধি পায় তার সদুত্তর কেউ দিতে পারেনা। নারী শরীর নিয়ে অনেকের অনেক রকম ধারনা। কেউ কেউ ভাবে মেয়েদের স্ত’নে পুরুষের হাতের স্পর্শ পেলেই তা বৃদ্ধি পায়। আপনার মনেও যদি এরকম কোন ধারনা এসে থাকে তাহলে আপনি এই নিবন্ধটি পড়ুন। আসলে মেয়েদের শ’রীরের গঠন বৃদ্ধি পায় খুব দ্রুত। ছেলেদের সেই তুলনায় কম হয়। মেয়েদের ৮ বছর বয়সেই শরীরে বৃদ্ধি হতে শুরু করে। বিয়ের পর মেয়েদের স্ত’নের আকারে পরিবর্তন আসে। কিন্তু বিয়ের সাথে স্ত’নের কোন সম্পর্ক নেই। আসলে বিয়ের পর সহবাসের সময় উ’ত্তেজনার কারনে শরীরে র’ক্ত সঞ্চালন বেড়ে যায়। শরীরের সমস্ত জায়গায় র’ক্ত সঞ্চালন বেড়ে গেলে স্ত’নের আকার বৃদ্ধি পায়। নাহলে মেয়েদের সাধারণত ২১ বছর বয়স পর্যন্ত স্ত’নের বৃদ্ধি ঘটে। স্ত’ন টি’পলেই যে তার বৃদ্ধি ঘটে তা সম্পুর্ন ভুল কথা। এই ভুল কথাটির উপর ভিত্তি করে অনেক মেয়ে নিজের স্ত’ন বৃদ্ধি করার জন্য একা থাকার সময় নিজেই তা টে’পে। তাতে কোন লাভ হয় না। কিন্তু হ্যাঁ, যদি নিয়মিত স্ত’নের ম্যা’সাজ করা হয়, তাহলে তার বৃদ্ধি হয় এবং ঝুলে যায় না। অবশ্য তা কিছু সময় সাপেক্ষ। কোন মেয়ের গ’র্ভবতী হওয়ার পর, সন্তান জন্মের পর বাচ্চাকে দু’গ্ধ পান করানোর সময় মেয়েদের স্ত’নের বৃ’দ্ধি ঘটে। আবার যারা নিয়মিত শারী’রিক কসরত করে তাদের স্ত’নের আকার বৃদ্ধি পায়। শরীরে যাদের অ’তিরিক্ত মে’দ জমে তাদের স্ত’নের আকার অস্বাভাবিক ভাবে বৃদ্ধি পায়। না’রী অ’ঙ্গ গু’লির আকার পরিবর্তনের ক্ষেত্রে দায়ী হল দুটি হরমোন। ইস্ট্রোজেন এবং প্রো’জেস্টেরন। হরমোন ঘটিত কোন সমস্যা থাকলে সেই প্রভাব স্ত’নের উপরেও এসে পড়ে। কিছু মহিলা যারা নিজেদের স্ত’ন নিয়ে খুশি নন তারা আকার বৃদ্ধি করার জন্য বিভিন্ন ক্রিম এবং নানা রকম ওষুধ ব্যবহার করেন। তাতে কোন ফল শেষ পর্যন্ত পাওয়া যায় না। নানারকম ওষুধের পা’র্শ্বপ্রতিক্রিয়ার ফলে শরীরের ক্ষতি হয়। কোন কিছু করেই শরীরের কোন অ’ঙ্গের কোন পরিবর্তন হয়না। যা হওয়ার নিজে থেকেই হয়।

About oneworld

Check Also

রসুন খেলে ৩ গুণ বেড়ে যায় পুরু’ষের শা’রীরিক সক্ষ’মতা

অনেকের দেখাযায় অতিরিক্ত মাত্রায় শা’রীরিক মেলামেশা করার ফলে শুক্র সল্পতা দেখা দেয় অর্থাৎ শুক্রাণুর মাত্রা …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *