fbpx
Home / Uncategorized / এই ১০টি লক্ষণে বুঝবেন মেয়েটি এ’কাধিক পু’রুষে আ’সক্ত

এই ১০টি লক্ষণে বুঝবেন মেয়েটি এ’কাধিক পু’রুষে আ’সক্ত

এই ১০টি লক্ষণে বুঝবেন মেয়েটি এ’কাধিক পু’রুষে আ’সক্ত – একজন পুরুষের একাধিক প্রে’মিকা আছে, এটা অনেকে মেনে নিতে পারলেও একজন নারীর একাধিক প্রে’মিক রয়েছে, এটা হ’জ’ম ক’রতে পারেন না অনেকেই!একজন পুরুষ মেনেই নিতে পারেন না যে তার ভালোবাসার নারীটি গো’পনে আরও এক বা একাধিক পুরুষের সাথে স’স্পর্কে জ’ড়িত।তা বোঝাটা কিন্তু খুব একটা ক’ঠিন নয়। প্রে’মিকাকে খোলাখুলি জিজ্ঞাসা করার আগে আপনি কিছু লক্ষণ দেখে বুঝে নিতে পারেন তার জীবনে আপনিই একমাত্র পুরুষ নন। দেখে নিন এমন কিছু লক্ষণ- চলুন তবে জেনে নেওয়া যাক যে ১০টি লক্ষণ – ১) আপনারা তেমন একটা দেখা করেন না: অনেক পুরুষই ভাবেন, একবার ডেটে গেছেন তারমানে আপনাদের স’স্পর্ক শক্তপোক্ত হয়ে গেছে। এমন অহংকার থেকেই তিনি আর প্রে’মিকাকে তেমন সময় দেন না।এটা একটা বড় ভুল। আপনি যদি তাকে তেমন একটা সময় না দেন, আর প্রে’মিকাও সেটা নিয়ে তেমন একটা অ’ভিযোগ না করেন, তাহলে হয়তো অন্য কোনো পুরুষ তাকে সময় দিচ্ছেন। ২) আপনার আত্মবিশ্বা’স নেই: প্রে’মিকাকে আকৃষ্ট করার জন্য পুরুষের সবচেয়ে বড় গুণ হলো তার আত্মবিশ্বা’স। অহংকার নয় বরং আত্মবিশ্বা’স এবং আত্মম’র্যাদাকেই তারা প্রাধান্য দেন। আপনার আচরণ থেকেই যদি বোঝা যায় আপনি আত্মবিশ্বা’সী নন, নিজেকে নিয়ে হীনমন্যতায় ভু’গছেন তাহলে নিঃস’ন্দে’হেই আপনার প্রে’মিকা অন্য কোনো পুরুষের সান্নিধ্য খুঁজবে। আত্মবিশ্বা’সী হোন এবং তাকে বলুন, আপনি তার একমাত্র প্রে’মিক হতে চান। ৩) আপনার প্রে’মিকা দুরত্ব বজায় রাখেন: প্রে’মিকা যদি দুরত্ব বজায় রাখেন এবং সময় চান, তার মানে আ’সলে তিনি আপনার ব্যাপারে ততটা আগ্রহী নন। হয়তো তার অন্য কোনো প্রে’মিক আছে এবং তার সাথেই তিনি সময় কা’টাতে ইচ্ছুক। ৪) প্রে’মিকা নয় বরং ব’ন্ধুর মতো আচরণ: বান্ধবী আর প্রে’মিকা এক নয়। তিনি যদি এ দুইয়ের মাঝামাঝি আচরণ করেন, তাহলে কী’ করবেন? অনেক নারীই ব’ন্ধুর সাথে প্রে’ম করেন, ব’ন্ধুত্ব ও প্রে’ম দুটোই বজায় রাখেন, সেটা আ’লাদা। কিন্তু আপনি যদি তার আচরণে বি’ভ্রান্ত হয়ে যান যে তিনি প্রে’মিকা নাকি বান্ধবী, তাহলে হয়তো তিনি আপনার ব্যাপারে সিরিয়াস নন এবং অন্য কাউকে ডেট করছেন তিনি। একাধিক প্রে’মিকের সাথে ডেট করছেন বলেই তিনি পুরোপুরি প্রে’মিকার স্থানটাও নিচ্ছেন না, আবার ব’ন্ধুত্বেও ফি’রে যাচ্ছেন না। ৫) তিনি প্রে’মিক হিসেবে আপনার পরিচয় দেন না: আপনি হয়তো তার ব’ন্ধুমহলের সাথে দেখা ক’রতে গে’লেন। অথচ প্রে’মিক হিসেবে নয়, বরং ব’ন্ধু হিসেবেই আপনাকে বাকিদের সাথে পরিচয় করিয়ে দিলেন আপনার প্রে’মিকা। এটা একটা বি’পদ সংকেত। ৬) আপনি তার ব’ন্ধুদের চেনেন না: এটা আরও বড় একটি লক্ষণ। আপনারা বেশ কিছুদিন ডেট করছেন অথচ তার ব’ন্ধুদের সাথে আপনার কখনোই দেখা হয়নি। হয়তো তার জীবনে আপনার স্থানটা তেমন শক্ত নয়, বা ব’ন্ধুরা তার প্রে’মিক হিসেবে অন্য কাউকে চেনেন। ৭) প্রে’মিকা সিদ্ধা’ন্তহীনতায় ভু’গছেন : আপনি চাইছেন প্রে’মিকার ব’ন্ধু বা পরিবারের সাথে দেখা ক’রতে, অথচ তিনি বলছেন এ ব্যাপারে সিদ্ধা’ন্ত নিতে পারছেন না তিনি- তাহলে হয়তো আপনি তার একমাত্র প্রে’মিক নন। তিনি যদি সত্যিই আপনাকে ভালোবাসেন, তাহলে কোনো সিদ্ধা’ন্ত নিতেই স’মস্যা হবে না এবং আপনাকে ঝুলিয়ে রাখবেন না তিনি। ৮) তিনি বারবার অ’তীতের স্মৃ’তিচারণ করেন: অনেক সময়ে অ’তীতের তিক্ত স’স্পর্কের কথা বলে প্রে’মিকা নি’শ্চিত ক’রতে চান, আপনিও তেমন কোনো স’মস্যা করবেন না তার জীবন। কিন্তু এর আরও একটি মানে হতে পারে, তিনি আপনাকে ঠিক বিশ্বা’স করেন না। এমনকি অনেক সময়ে এটাও হতে পারে যে তিনি আ’সলে প্রাক্তন প্রে’মিকের সাথে পুরোপুরি স’স্পর্কচ্ছেদ করেননি। ৯) আপনাদের কথোপকথন একপেশে: প্রে’মিকা সবসময় তার স’মস্যা নিয়েই কথা বলেন। আপনি যে কোনো কথা বলতে চাইলে তিনি বলে দেন, সময় নেই। এটা অনেক বড় স’মস্যা। আপনিই তার একমাত্র ‘অ’পশন’ নন। এ কারণে তিনি আপনাকে চাইলেই অবহেলা ক’রতে পারেন। সময় কা’টানোর জন্য হয়তো অন্য কোনো প্রে’মিক রয়েছে তার। ১০) স’স্পর্ক থমকে আছে: আপনারা প্রে’ম করছেন অনেক দিন হলো। কিন্তু স’স্পর্কটাকে আগাতে কোনো পদক্ষে’প নিচ্ছেন না। একে অ’পরের ব’ন্ধুদের চেনেন না, কলিগদের চেনেন না, পরিবারের সাথে দেখা-সাক্ষাৎ নেই। ভবিষ্যতে কী’ করবেন তা নিয়ে আলোচনাও হচ্ছে না, তাহলে আপনার প্রে’মিকা হয়তো আপনাকে নিয়ে চিন্তাই করছে না। হয়তো তিনি অন্য কারো সাথে থিতু হবার প’রিকল্পনা করছেন। এমন ক্ষেত্রে তার সাথে সরাসরি আলোচনা করুন এবং স’স্পর্ককে সামনের দিকে অগ্রসর হতে দিন।

About oneworld

Check Also

রসুন খেলে ৩ গুণ বেড়ে যায় পুরু’ষের শা’রীরিক সক্ষ’মতা

অনেকের দেখাযায় অতিরিক্ত মাত্রায় শা’রীরিক মেলামেশা করার ফলে শুক্র সল্পতা দেখা দেয় অর্থাৎ শুক্রাণুর মাত্রা …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *