fbpx
Home / Uncategorized / সিনহা হত্যা মামলায় প্রদীপ-লিয়াকত-নন্দদুলাল রিমান্ডে

সিনহা হত্যা মামলায় প্রদীপ-লিয়াকত-নন্দদুলাল রিমান্ডে

পুলিশের গুলিতে সাবেক সেনা কর্মকর্তা সিনহা মোহাম্মদ রাশেদ খান নিহতের ঘটনায় দায়ের করা হত্যা মামলায় তিন আসামিকে আজ বৃহস্পতিবার জিজ্ঞাসাবাদের জন্য রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন আদালত। এ ছাড়া মামলার বাকি চার আসামিকে জেলগেটে জিজ্ঞাসাবাদের অনুমতি দেওয়া হয়েছে।হত্যা মামলার প্রধান আসামি টেকনাফের বাহারছড়া শামলাপুর পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের প্রত্যাহার হওয়া পরিদর্শক লিয়াকত আলী, টেকনাফ থানার সাবেক ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) প্রদীপ কুমার দাশ ও উপপরিদর্শক (এসআই) নন্দদুলাল রক্ষিতকে সাতদিন করে রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন কক্সবাজারের সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মোহাম্মদ হেলাল উদ্দিনের আদালত।

এ ছাড়া সহকারী উপপরিদর্শক (এএসআই) লিটন মিয়া, পুলিশ কনস্টেবল সাফানুর রহমান, কামাল হোসেন, আবদুল্লাহ আল মামুনকে জেলগেটে জিজ্ঞাসাবাদের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

মামলার বাদীপক্ষের আইনজীবী মাহবুবুল আলম টিপু রিমান্ড শুনানি শেষে গণমাধ্যমকে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। তিনি আরো বলেন, ‘র‍্যাবের পক্ষ থেকে মামলার সাত আসামিকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ১০ দিন করে রিমান্ডের আবেদন করা হয়। অপরদিকে আসামিপক্ষের আইনজীবীরা রিমান্ড বাতিল চেয়ে আবেদন করেন। দীর্ঘ শুনানি শেষে বিচারক তিনজনকে সাতদিন করে রিমান্ড দেন। বাকিদের জেলগেটে জিজ্ঞাসাবাদের অনুমতি দেওয়া হয়েছে।

পরে আজ রাত সাড়ে ৯টার দিকে আদালত চত্বরে র‍্যাব-১৫ এর ভারপ্রাপ্ত কমান্ডার মেজর মেহেদি হাসানও গণমাধ্যমকে বিষয়টি নিশ্চিত করেন। এ সময় তিনি আরো বলেন, যদি প্রয়োজন হয় তাহলে আবারো রিমান্ডের জন্য আদালতে আবেদন করা হতে পারে।

এর আগে আজ বিকেলে একই আদালতে আসামিদের হাজির করা হয়। এরপর আসামিদের কারাগারে আটক রাখার আবেদন করা হয়। তখন কোনো রিমান্ডের আবেদন করা হয়নি। অপরদিকে আসামিদের পক্ষ থেকে জামিন আবেদন করা হয়। শুনানি শেষে আদালত আসামিদের জামিন আবেদন নাকচ করে দিয়ে কারাগারে আটক রাখার আদেশ দেন।

এরপর সন্ধ্যায় র‍্যাব সাত আসামিকে ১০ দিন করে রিমান্ডে নেওয়ার আবেদন করেন।

এই হত্যা মামলায় মোট নয়জন আসামি হলেও আজ সাতজন আত্মসমর্পণ করেন। যে দুজন আত্মসমর্পণ করেননি পলাতক দেখিয়ে তাদের বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করা হয়েছে।

আসামি এসআই টুটুল ও কনস্টেবল মো. মোস্তফা আত্মসমর্পণ করেননি বলে নিশ্চিত করেছেন আদালতের রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী (পিপি) ফরিদুল আলম। তিনি আরো বলেন, ‘মামলার নয় আসামির সাত আসামি আত্মসমর্পণ করেন। এসআই টুটুল ও কনস্টেবল মোস্তফা আত্মসমর্পণ করেননি।

‘আসামিরা আত্মসমর্পণ করেছেন এবং তারা জামিনের আবেদন করেছেন’, যোগ করেন পিপি।

About oneworld

Check Also

মা-বাবার রক্তের গ্রুপ একই হলে সন্তান জন্মে কোনো সমস্যা হয় কী?

প্রশ্ন: মা-বাবার রক্তের গ্রুপ একই হলে সন্তান জন্মে কোনো সমস্যা হয় কী? উত্তর: অনেকেরই ধারণা …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *